bayan escort izmir
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

জার্নি প্লাসের সাহসী উদ্যোগ: ”সিলভার ডিসকোভারার’’ এবারের নোঙ্গর কক্সবাজারে

silver-sea.jpeg

বেলাল ভুট্টো:  আমেরিকা, ইউরোপ ও কানাডার নাগরিকদের নিয়ে সুন্দরবন পরিদর্শনের পর ‘সিলভার ডিসকোভারার’ এবার নোঙ্গর ফেলছে কক্সবাজারে। বাংলাদেশের একমাত্র পাহাড়ীদ্বীপ মহেশখালীর ঐতিহ্যবাহী আদিনাখ মন্দির- রাখাইন পল্লী স্থানীয় মানুষের জীবন ধারার অভিজ্ঞতা নেয়ার পাশাপাশি প্রাচীন রাখাইন পাড়ার ডিজিটাল স্কুল ‘’বার্মিজ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্থানীয় রাখাইন কম্যুনিটি ও শিক্ষার্থীদের সমন্ধয়ে একটি অনুষ্টান উপভোগ করবে।

এই ট্যুর সফল ভাবে সম্পন্য করার জন্য ইতিমধ্যে ঢাকা থেকে জার্নি প্লাসের উর্ধতন কর্মকর্তা সহ মূল আয়োজকদের প্রতিনিধিরা পর্যটন শহর কক্সবাজারে অবস্থান করছেন।

আজ বুধবার বিকাল নাগাদ ক্রুজ শিপটি কক্সবাজার সৈকতের অদূরের বঙ্গোপসাগরে নোঙ্গর করছে। আগামী কাল বৃহস্পতিবার সকল অতিখিরা মহেশখালীতে পদধূলি দিবেন।

উল্লেখ্য, ভারতের চেন্নাই থেকে ১৬২ জন পর্যটক নিয়ে ক্রুজ শিপটি রওনা দিয়ে বাংলাদেশের সুন্দরবন- কক্সবাজার হয়ে বঙ্গোপসাগর দিয়ে মিয়ানমারে গিয়ে যাত্রা সমাপনী করবে।

দেশের শীর্ষ স্থানীয় ট্যুরিজম প্রতিষ্ঠান, জার্নিং প্লাসের ব্যস্থাপনায় বাংলাদেশে দ্বীতিয়বারের মতো কোন ক্রুজ শিপ বিদেশী পর্যটক নিয়ে বাংলাদেশে আগমন। এই উদ্যোগের ফলে বাংলাদেশের পর্যটন বিশ্ব বাজারের উপস্থাপনের অন্যতম সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন, এই খাতে জড়িত উদ্যো্ক্তারা।

এই ট্যুরের মাধ্যমে দেশের মানুষের পর্যটন কেন্দ্রিক ব্যবসা বাণিজ্য বিকশিত হওয়ার পাশাপাশি কমিউনিটি ট্যুরিজম উৎসাহিত হয়। আদিনাথ মন্দির সংলগ্ন তাত পণ্য বিক্রেতা মাথেনু বলেন, বিদেশী পর্যটকেরা গ্রামীন পণ্যের দারুন আগ্রহী, তারা ভালো দামও দেয়। যত বিদেশী আসবে তত আমাদের ব্যবসা প্রসারিত হবে।

এই প্রসঙ্গে জার্নি প্লাসের প্রধান নির্বাহী তোফিক রহমান বলেন, বিদেশী ক্রুজ শিপ যখন দেশে আসবে, এতে করে দেশ অর্থনৈতিক ভাবে লাভবান হবার পাশাপাশি দেশের ইতিবাচক ভাবমুর্তি উন্নত হবে। আমাদের দেশ সম্পর্কে বিদেশী অনেকের নেতিবাচক ধারনা। বিদেশী ক্রুজ যত বেশী আসবে, বিদেশীদের কাছে আমাদের তত বেশি ইতিবাচক ধারনা তৈরি হবে। এতে পরবর্তীতে আরো বেশী বিদেশী পর্যটক দেশে আসবে। এবং তা তত বেশী মঙ্গল আমাদের দেশের এবং ‍দেশীয় পর্যটনের জন্য মঙ্গল। 

তাছাড়া এই পর্যটকদের আগমনের কল্যানে কক্সবাজারের শতাধিক পর্যটনের সাথে জড়িত লোকের সাময়িক কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে। এই কার্যক্রম চলমান রাখা গেলে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি অর্থবহ সুফল বয়ে আনবে।

Top
canlı bahis canlı poker canlı casino canlı casino canlı casino canlı casino oyna canlı casino