bayan escort izmir
porno izle sex hikaye
corum surucu kursu malatya reklam

বাংলাদেশ-ভারতে ৭০ বছর পর পর্যটকবাহী জাহাজ চালু

.jpg

ভ্রমণপিপাসুদের জন্য ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা রুটে জাহাজ সেবা উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেছেন, ‘৭০ বছর ধরে ভারতের সঙ্গে আমাদের নৌপথে পর্যটকবাহী ক্রুজ শিপ বন্ধ ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে আবারও দুই দেশের নৌপথে যাত্রীদের জাহাজে সেবা দেওয়া শুরু হলো। তাই আজকের দিনটি মাইলফলক হয়ে থাকবে। এর মাধ্যমে নৌপথে নতুন দিগন্ত রচনা হলো।’ শুক্রবার (২৯ মার্চ) বিকালে নারায়ণগঞ্জের পাগলায় বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) মেরি এন্ডারসন ভিআইপি জেটিতে তিনি এসব বলেন।

বিআইডব্লিউটিসি’র নিজস্ব অত্যাধুনিক জাহাজ এম.ভি. মধুমতি শুক্রবার রাত ৮টায় ৮০ জন যাত্রী ও কেবিন ক্রুসহ ১২০ জনকে নিয়ে মেরি এন্ডারসন ঘাট থেকে কলকাতার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। এই নৌযানে চড়ে যাত্রীরা সুন্দরবনসহ দক্ষিণ বাংলার অপার সৌন্দর্য উপভোগ করে কলকাতায় পৌঁছাবেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নদীর দেশ বাংলাদেশ। আমাদের বাংলাদেশের যত শহর, বন্দর, বাজার ও সভ্যতা; সবই নদীর তীরে হয়েছে। নৌপথে ভ্রমণ ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সবচেয়ে প্রিয়। তিনি পরিবারের সদস্য ও জাতীয় নেতাদের নিয়ে চাঁদপুর, বরিশাল, গোয়ালন্দ হয়ে গোপালগঞ্জে নিজের গ্রামে যাতায়াত করতেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা সেইসব ভ্রমণের স্মৃতি এখনও মাঝে মধ্যে আমাদের সামনে তুলে ধরেন। আমাদের দেশের নদীগুলো কত সুন্দর তাও তিনি বলেন।’

.

পর্যটকবাহী জাহাজ সেবার উদ্বোধন করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালনৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদানকে আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি। দুই দেশের মধ্যে নতুনভাবে এই নৌ-চলাচল আমাদের বন্ধনকে আরও সুদৃঢ় করবে।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুস সামাদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া, পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ, কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের শ্রমিক উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ।

.

” onclick=”return false;” href=”http://cdn.banglatribune.com/contents/cache/images/800x0x1/uploads/media/2019/03/29/83417e0ac1c6b42a7ba6ef6847c6aef3-5c9e3f37a97be.jpg” title=”” id=”media_2″ class=”jw_media_holder media_image jwMediaContent aligncenter”>এম.ভি. মধুমতিবিআইডব্লিউটিসি জানিয়েছে, ঢাকা-কলকাতা জাহাজের কেবিন ভাড়া ফ্যামিলি স্যুট (দুই জন) ১৫ হাজার টাকা, প্রথম শ্রেণি (জনপ্রতি) ৫ হাজার টাকা, ডিলাক্স শ্রেণি (দুই জন) ১০ হাজার টাকা, ইকোনমি চেয়ার (জনপ্রতি) ২ হাজার টাকা ও সুলভ শ্রেণি বা ডেক (জনপ্রতি) ১৫০০ টাকা।

জানা গেছে, শুক্রবার কলকাতা থেকে ‘মেসার্স আরভি. বেঙ্গল গঙ্গা’ নামের একটি ক্রুজ শিপ ঢাকা অভিমুখে রওনা করছে। জাহাজ দুটি বরিশাল, বাগেরহাটের মংলা, সুন্দরবন, খুলনার আন্টিহারা ও ভারতের হলদিয়া রুট হয়ে কলকাতায় যাবে ও নারায়ণগঞ্জে আসবে।

গত বছর ঢাকা-কলকাতা যাত্রীবাহী জাহাজ পরিবহনের বিষয়ে সম্মত হয় বাংলাদেশ ও ভারত। এ সংক্রান্ত চুক্তিতে সই করেন বাংলাদেশের নৌপরিবহন সচিব আবদুস সামাদ ও ভারতের জাহাজ মন্ত্রণালয়ের সচিব গোপাল কৃষ্ণ। নৌযান চালুর ফলে ভারতের গঙ্গা আর বাংলাদেশের যমুনা ও ব্রহ্মপুত্র নদী তিনটি নৌ-যোগাযোগে সংযুক্ত হবে।

সংবাদ: বাংলা ট্রিবিউনের সৌজন্যে।

Top
canlı bahis canlı poker canlı casino canlı casino canlı casino canlı casino oyna canlı casino